সৈয়দপুরে ইটস্ হিউম্যানিটি ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে তিনশত পরিবারের মাঝে খাদ্য সহায়তা প্রদান

0
8

মিজানুর রহমান মিলন
সৈয়দপুর প্রতিনিধি :
****************
সৈয়দপুরে করোনা ভাইরাস পরিস্থিতিতে কর্মহীন অসহায় পরিবারদের মাঝে খাদ্য সহয়তা বিতরণ কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছে ইটস্ হিউম্যানিটি ফাউন্ডেশন
(আইএইচএফ) নামে সমাজসেবা মূলক বেসরকারি সংস্থা। সংস্থাটির সৈয়দপুর শাখার পক্ষ থেকে আজ শনিবার বিকেলে বিভিন্ন এলাকার তিনশত পরিবারের মাঝে খাদ্য সহায়তা প্রদান করা হয়।

সংস্থাটির কেন্দ্রীয় সভাপতি মো.আদনান হোসেনের উদ্যোগে সহযোগি পার্টনার সাজেদা ফাউন্ডেশনের সহযোগিতায় শহরের নতুন বাবুপাড়া শাপলা ভবন এলাকায় আয়োজিত খাদ্য সহায়তা বিতরণকালে এসময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ইটস্ হিউম্যানিটি ফাউন্ডেশন সহ সভাপতি মো. শাহিদ আকতার, সৈয়দপুর শাখার সভাপতি শেখ নিজাম উদ্দিন,যুগ্ম সাধারন সম্পাদক মো. খালিদ আজম, কোষাধ্যক্ষ মো. শাহিন হোসেন, সদস্য মো. শাহবাজ উদ্দিন সবুজ, আরাফাত হোসেন,মো. আজিমসহ ইটস্ হিউম্যানিটি ফাউন্ডেশনের পরিচালনায় সৈয়দপুরের কাইটস্ স্কুলের শিক্ষকবৃন্দ। সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে অনুষ্ঠানে কর্মহীন পরিবারের সদস্যদের মাঝে খাদ্য সহায়তার প্যাকেট তুলে দেয়া হয়।

এসব প্যাকেটে ছিল চাল,ডাল আটা,ছোলা (বুট),চিনি,বেশন,লবন,তেল, চিড়া ও সাবান। ইটস্ হিউম্যানিটি ফাউন্ডেশনের কার্যক্রম প্রসঙ্গে জানতে চাইলে সংস্থাটির সহ সভাপতি মো. শাহিদ আকতার জানান,করোনা ভাইরাস পরিস্থিতির শুরু থেকেই তাদের সংস্থা মানবসেবায় কাজ করে যাচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় আজ শনিবার বিকেলে কর্মহীন তিনশত পরিবারদের মাঝে চতুর্থ দফায় খাদ্য সহায়তা দেয়া হয়েছে। এরআগে শহরের বিভিন্ন এলাকায় তিন দফায় ৪৫০ জন পরিবারের মাঝে খাদ্য সহায়তা দেয়া হয়।
তিনি বলেন করোনা ভাইরাস পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত তাদের সংস্থার এ কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।
সংস্থাটির সুত্র জানায়, সৈয়দপুর শহরের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মরহুম আকতার

হোসেনের পুত্র মো. আদনান হোসেন সমাজসেবার অভিপ্রায়ে ইটস্ হিউম্যানিটি ফাউন্ডেশন (আই এইচ এফ) নামে সংস্থাটি গড়ে তোলেন।
তাঁর গড়ে তোলা সংস্থাটি বিগত পাঁচ বছর ধরে বিভিন্ন সমাজসেবায় কাজ করে যাচ্ছে। এছাড়া সৈয়দপুরে ওই সংস্থা দুইটি স্কুলও পরিচালনা করে আসছে। এতে সমাজের পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর সন্তানেরা পড়ালেখার সুযোগ পাচ্ছে। এজন্য সংস্থাটির পক্ষ থেকে প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন সহযোগিতা দেয়া হচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here