নারকেলের কী কী উপকারিতা রয়েছে?

0
15

যুগ যুগ ধরে চুলের যত্ন থেকে শুরু করে মানসিক ক্লান্তি দূর, হজমে সহায়তা, ত্বকের যত্মে, কর্মক্ষমতা বৃদ্ধিসহ কাঁটা-ছেড়ার চিকিৎসায়ও প্রাথমিক পথ্য হিসেবে ব্যবহার হয়ে আসছে এই তেল।

নারকেল তেলে রয়েছে অধিক মাত্রায় ফাইবার, খনিজ পদার্থ এবং ভিটামিন।

এই তেল বিপাক প্রক্রিয়াকে নিয়ন্ত্রণ করে আপনার অতিরিক্ত মেদও দূর করতে সহায়তা করতে পারে। এতে পরিমিত মাত্রায় ফ্যাটি এসিড থাকে যা অত্যাধিক ওজন এবং পেটের তেল কমাতে সাহায্য।

নারকেল তেলে থাকে ৯০% স্যাচুরেটেড ফ্যাট।এটি আসলে মিডিয়াম চেন ট্রাইগ্লিসেরাইড (medium-chain triglyceride) লিউরিক অ্যাসিড। যেটা এমন একটি ফ্যাটি অ্যাসিড যা অন্যান্য খাদ্য থেকে প্রাপ্ত ফ্যাট থেকে উপকারী।

এই মিডিয়াম চেন ট্রাইগ্লিসেরাইডে থাকে ৬-১০ টি কার্বন অটোমের চেন যেখানে অন্য লং চেন ট্রাইগ্লিসেরাইডে (long-chain triglyceride) থাকে ১২-১৮ টি কার্বন অটোমের চেন।

যার ফলে লিভারে খুব তাড়াতাড়ি নারকেল তেল হজম হয়ে যায় ও এই কারণে শরীরে ফ্যাট জমতে পারে না আর ক্যালোরিও সঠিক মাত্রায় বজায় থাকে।

এই ফ্যাট আমাদের শরীরের খারাপ ফ্যাট গুলোকে নষ্ট করে অতিরিক্ত চর্বি কমিয়ে ওজন হ্রাস করে। সাথে সাথে আমাদের শরীরের শক্তি বৃদ্ধি করে।

ব্রেন ফাংশনকে উন্নত করে

নারকেল তেল ব্রেন ফাংশনের জন্য ভীষণ উপকারী কারণ এর মিডিয়াম চেন ট্রাইগ্লিসেরাইড লিভার থেকে ডাইজেস্টিভ ট্রাকে যায় এবং সেখানে গিয়ে কিটোনে পরিণত হয়। এই কিটোন খুব তাড়াতাড়ি ব্রেন সেল গুলিতে এনার্জি সাপ্লাই করে।

হৃদ রোগ এবং উচ্চ রক্তচাপ (High blood pressure)

আমরা আগেই আলোচনা করেছি যে নারকেল তেলের মধ্যে ৯০% স্যাচুরেটেড ফ্যাট থাকে যা আমাদের দেহে গুড কলেস্টেরল বা HLD (high-density lipoprotein) বাড়ায় ও সাথে সাথে bad কলেস্টেরল বা LDL (Low-density lipoprotein) কে good কোলেস্টেরোলে পরিণত করে। সুতরাং HDL বাড়লে হার্ট সুস্থ থাকবে ও চর্বি জমতে না দিয়ে মেদ কমাতে সাহায্য করে।

নারিকেল তেল দ্রুত ফ্যাট কমায়

আপনি আপনার দৈনিক ক্যালোরি যুক্ত খাবার খাওয়া কমিয়ে ফ্যাট কমিয়ে ফেলতে চান? তাহলে ঠিক জায়গাতেই আছেন। নারিকেল তেল গ্রহণ করাই আপনার শরীরের দ্রুত ফ্যাট কমে আসে।

এর কারণ হলো নারকেল তেলের মধ্যে প্রচুর পরিমানে ক্যাপ্রিক অ্যাসিড থাকে। যদি আপনি প্রতিদিন দুই চামচ নারকেল তেল খান তাহলে এই ক্যাপ্রিক অ্যাসিড এবং মিডিয়াম চেন ট্রাইগ্লিসেরাইড শরীরের থের্মোজেনেসিস বা ফ্যাট বার্নিং সিস্টেমকে ৫% বাড়িয়ে দেয়। আর এটি সবথেকে বেশি কার্যকরী হয় পেটের মেদ কমাতে, যার ফলে খুব কম সময়ের মধ্যে মেদ ঝরে যায় আর আপনার ওজন কাঙ্ক্ষিত হারে নিয়ন্ত্রনে আসে।

পেশি ক্ষয় রোধ করে ও পেশি গঠনে সাহায্য করে

নারকেল তেলে থাকা মিডিয়াম চেন ট্রাইগ্লিসেরাইড (MCT) পেশির ক্ষয় রোধ করে ও এই কাজে তাকে সাহায্য করে কিটোনে। নারকেল তেলে থাকা মিডিয়াম চেন ট্রাইগ্লিসেরাইড পেশির ক্ষয় রোধ করে ও এই কাজে তাকে সাহায্য করে কিটোনে। এর পাশাপাশি নারকেল তেলে থাকা অ্যামিনো অ্যাসিড পেশির মেরামতি ও বৃদ্ধিতে বিশেষ ভূমিকা রাখে।নারিকেল তেল এইভাবে আমাদের শক্তি বৃদ্ধি করার সাথে সাথে কোমর, নিতম্ব ও উরুর মতো জায়গাগুলোর চর্বি কমিয়ে আনে। কাজেই বাজার চলতি যে সমস্ত মাসল বিল্ডিং প্রোডাক্ট পাওয়া যায় সেই গুলি থেকে সাবধান কারণ এখানে প্রসেসেড MCT ব্যবহার করা হয় যা স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর , তার চেয়ে এই ভাবে ন্যাচারাল উপায়ে আপনারা মেদ কমাতে পারেন কোনো রকম পার্শপ্রতিক্রিয়া ছাড়াই।

ক্যান্সার রোধ করে নারকেল তেল

নারকেল তেল ক্যান্সার রোধে বিশেষ ভাবে কার্যকরী। কিটোনের থেকে যে এনার্জি উৎপন্ন হয় তা ক্যানসারের টিউমার সেল গুলিকে ধ্বংস করতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে। নারকেল তেলের মিডিয়াম চেন ট্রাইগ্লিসেরাইড হেলিকোব্যাক্টের পাইলোরি (helicobacter pylori) নামক এক ধরণের ব্যাকটেরিয়াকে ধ্বংস করে যা স্টমাক ক্যান্সারের অন্যতম প্রধান কারণ। একটি পরীক্ষা করে দেখা গেছে যে ক্লিনিক্যালি ক্যান্সার সেল তৈরী করে তার উপর নারকেল তেল দিলে সেটি আর বিস্তার করতে পারি নি। তাই প্রতিদিন যদি আমরা কিটোজেনিক ডায়েট খাই অর্থাৎ নারকেল তেলের রান্না খাই তাহলে ক্যান্সারকে প্রতিরোধ করতে অনেকটাই সক্ষম হবো।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here