তেরো (১৩) সংখ্যাটিকে “আনলাকি থার্টিন” বলার কারণ কী?

0
7

আমাদের সবারই কম বেশি এই আনলাকি ১৩ (unlucky 13) সম্পর্কে জানা। কিন্তু আমরা ক’জন এর প্রকৃত ইতিহাস সম্পর্কে জানি? আমাদের এই মহাদেশ মানে এশিয়ার মানুষদের তুলনায় ইউরোপ বা আমেরিকার মানুষরা এই ‘আনলাকি ১৩’ এর তত্ত্বটি বেশি মেনে চলে।

চলুন জেনে নিই কীভাবে আবির্ভাব হলো এই ‘আনলাকি ১৩’ এর-

১৯১০ সালে হিস্ট্রিকাইফোডিয়া নামে একটা রোগ আবিষ্কৃত হয়। এই রোগের অর্থ হলো তেরোর আতঙ্ক। এই আতঙ্কের কারণ হলো ১৩ সংখ্যাটিকে ডেভিল বা ইভিল নাম্বার বলা হয়ে থাকে। প্রথমে ধরা হতো কোনো টেবিলে ১৩ জনকে বসানো, কারও বাড়ির নাম্বার ১৩ সহ দৈনন্দিন জীবনে এমন প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে ১৩ সম্পর্কিত সব কিছুই অমঙ্গলজনক। সংখ্যা ১৩ নিয়ে বাইবেলে বিভিন্ন জায়গায় বলা হয়েছে। এভাবেই ধীরে ধীরে ১৩’কে অশুভ সংখ্যা হিসেবে ধরা হতো।

এছাড়াও অশুভ সংখ্যা ১৩’র পিছনে বহু বছর ধরে চলে আসা নানা ধরনের উক্তি, মতবাদ, বাইবেলের বর্ণনা, কুসংস্কার ইত্যাদি জড়িয়ে এটাকে আরো রহস্যময় করে রেখেছে।

১৩ নিয়ে ঘেরা রহস্যময় কিছু কথা:

১। লাস্ট সাপার (যিশুর শেষ খাবার গ্রহণের রাত্রি) এ ১৩ জন মানুষ ছিলেন এবং কথিত আছে যে ১৩ তম আসন গ্রহণের জন্য যিশু অথবা জুডাস (যিশুকে হত্যার ষড়যন্ত্রকারী) নিজে আগ্রহী ছিলেন।

২। কেউ কেউ মনে করেন লাস্ট সাপার গ্রহণ করা হয়েছিল নিসান মাসের ১৩ তারিখে। নিসান হলো ইহুদী ক্যালেন্ডারের একটি মাস। আর কেউ কেউ বলেন ক্রুসবিদ্ধকরণের তারিখটি ছিল ১৩ই নিসান।

৩। বাইবেলে ১৩ নিয়ে বলা বেশিরভাগ তথ্যই অশুভ সংকেত বহন করে।

৪। কোনো মাসের ১৩ তারিখ যদি শুক্রবার হয় তবে ইউরোপের মানুষজন প্রচুর ভয়ে থাকে। কারণ অনেকের মতে যিশুকে যে দিন ক্রুসবিদ্ধ করা হয় সে দিন ছিল শুক্রবার। আর এছাড়াও ইতিহাস থেকে জানা যায় বিভিন্ন সময়ে ১৩ তারিখের শুক্রবারগুলোতে পৃথিবীতে নানা ধরনের বিপর্যয় এসেছে।

৫। ইতিহাসবিদের মতে আগের দিনে বেশির ভাগ ফাঁসির কাষ্ঠে ওঠার জন্য যে সিঁড়ি ব্যবহার করা হতো তাতে ১৩টি ধাপ থাকত এবং এটি কখনোই ১৩’র বেশি হয়নি!

৬। স্ক্যান্ডেভিয়া ভাইকিং যোদ্ধাদের অপদেবতার নাম ছিল লোকি। যে চরিত্রটি আমরা বর্তমানে জনপ্রিয় মুভি থরের ভাই হিসেবে দেখতে পাই। যে কিনা মুভিতে ভিলেন এবং আসলেও ভিলেনই ছিল। বাইবেল মতে লোকি হলেন একজন দেবতা এবং তার নম্বর ১৩।

৭। ভাগ্য গণনার জন্য বহু বছরের পুরোনো যে অশুভ ট্যারট কার্ড রয়েছে তার মোট ৭৮টি কার্ডের ভিতরে ১৩ নম্বর কার্ডটির মানে হলো মৃত্যু!

৮। নাইট টেম্পলার, যারা ব্যাপকভাবে পবিত্র গ্রিলকে (যে পাত্র হতে যিশু শেষ সন্ধ্যায় পান করেছিলেন) রক্ষা করার কথা বলে বিশ্বাস করত সেই সাথে অন্যান্য পবিত্র বস্তুও ইউরোপীয় রাজাদের জন্য একটি ব্যাংক হিসেবে কাজ করেছিল। কিন্তু ফ্রেঞ্চ রাজা ফিলিপ চতুর্থের পর ইংল্যান্ডের সঙ্গে যুদ্ধে পরাজিত হন এবং নাইটস থেকে প্রচুর পরিমাণে ঋণী হন, তিনি নাইট টেম্পলারের সমস্ত সদস্যকে গ্রেফতারের জন্য পোপ ক্লিমেন্ট ভি’র সাথে ষড়যন্ত্র করেছিলেন, শয়তানবাদ ও অন্যান্য অপরাধের অভিযোগে এবং গণহত্যার শিকার হন। নাইট টেম্পলার রাউন্ডআপ শুক্রবার, ১৩ অক্টোবর, ১৩০৭ এ শুরু হয়।

৯। একটি পুরোনো কুসংস্কার প্রচলিত আছে যে আপনার নামে যদি ১৩ অক্ষর থাকে, তবে আপনি অভিশপ্ত হতে বাধ্য। একটু বোকা বোকা শোনালেও যখন আপনি দেখবেন যে বেশ কয়েকটি কুখ্যাত খুনীদের নাম যেমন, চার্লস ম্যানসন (Charles Manson), জ্যাক দ্য রিপার (Jack the Ripper), জেফরি দামের (Jeffrey Dahmer), থেডর বানডি (Theodore Bundy) এবং আলবার্ট ডি স্যালভো (Albert De Salvo) ১৩ অক্ষর ধারণ করে।

১০। ইউরোপ আমেরিকায় যে কোনো ১৩ই শুক্রবারকে ব্যবসার জন্য একটি ব্যয়বহুল দিন হিসেবে ধরা হয়। এক বিশ্লেষক দাবি করেন, ১৩ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের যে কোনো ধরনের ব্যবসায়ের ব্যবসা না করার ব্যাপারে।

১১। নাসার ‘অ্যাপোলো’ নামে যে নভোযানটি ছিল সেটি বিষ্ফোরিত হয় ১৯৭০ সালের নভেম্বর মাসের ৪ তারিখে। যার যোগফল ৪+১+১+৭+০ = ১৩ এবং দিনটিও ছিল ১৩ই এপ্রিল।

১২। পৃথিবীর বেশিরভাগ এয়ারলাইন্সে ১৩ নাম্বার নামে কোনো রুম থাকে না এবং আগের বিমানগুলোতে ১৩ নাম্বারের কোনো সিট থাকত না। ইউরোপ বা বিশেষ করে আমেরিকায় বহুতল ভবনের লিফটে ১৩ নাম্বার নামে কোনো সুইচ থাকে না।

১৩। ইউরোপে এক সমীক্ষায় দেখা যায় ১৪ তারিখে প্রকাশিত পত্রিকাগুলোতে তুলনামূলক বেশি বিপদ আপদের খবর পাওয়া যায়।

তাই যদি কোনো তারিখ ১৩ হয় বা ১৩ সম্পর্কিত কোনো কিছু থাকলে মানুষ অন্যদিনের তুলনায় কিছুটা সাবধানে থাকে। তবে এটা কিন্তু শুধুমাত্র ভৌতিক বা প্যারানরমাল দিক দিয়েই ভাবা হয়। আবার সাধারণভাবে কিন্তু প্রতিটি দিনই সমান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here