কেরানীগঞ্জে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত, ৪ হাজার পরিবার লকডাউনে

0
4

কেরানীগঞ্জের কদমতলী মডেল টাউন এলাকায় এক ব্যক্তি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। রোববার দুপুরে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কেরানীগঞ্জ উপজে’লা স্বাস্থ্য কর্মক’র্তা মীর মোবারক হোসাইন।

আক্রান্ত ব্যক্তির বয়স ৬৮ বছর। বর্তমানে তিনি বাংলাদেশ কুয়েত মৈত্রী হাসপাতালে ভর্তি আছেন। এটি কেরানীগঞ্জে প্রথম করোনা আক্রান্তের ঘটনা। এ দিকে রোববার বিকালে আক্রান্ত ব্যক্তির বাড়িসহ মডেল টাউন এলাকা পুরোটা লকডাউন করেছে উপজে’লা প্রশা*সন। মডেল টাউনে ১৮০টি বাড়িতে ৪ হাজার পরিবার রয়েছে বলে জানা গেছে।

আক্রান্ত ব্যক্তি শ*নাক্ত হওয়ার আগে কেরানীগঞ্জের ইবনে সিনা ও জিনজিরা ডায়াগনস্টিক সেন্টারে চিকিৎসা নিয়েছেন। ফলে ওই দুটি প্রতিষ্ঠানও লকডাউন করা হয়েছে। লকডাউন করা এ সব বাড়ি ও প্রতিষ্ঠানে লাল পতাকা টাঙিয়ে দেয়া হয়েছে।

কেরানীগঞ্জ উপজে’লা স্বাস্থ্য কর্মক’র্তা মীর মোশারফ হোসাইন জানান, ওই ব্যক্তি বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত ছিলেন। এ জন্য তিনি কেরানীগঞ্জের দুটি স্বাস্থ্যসেবা প্রতিষ্ঠানে চিকিৎসা নেন। একপর্যায়ে অবস্থার অবনতি হলে গত শুক্রবার তাকে রাজধানীর বারডেম হাসপাতালে তাকে ভর্তি করা হয়। সেখান থেকে তাকে বিএসএমএমইউতে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়।

তিনি জানান, বিএসএমএমইউতে পরীক্ষায় তার শরীরে করোনার উপস্থিতি পাওয়া যায়। রোববার দুপুরে আইইডিসিআর থেকে তাদের বিষয়টি অবহিত করা হয়।

কেরানীগঞ্জ উপজে’লা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কাম’রুল হাসান সোহেল জানান, আক্রান্ত ব্যক্তি হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার আগ পর্যন্ত স্থানীয় ম’সজিদে গিয়ে নামাজ পড়েছেন। এ ছাড়াও তিনি কেরানীগঞ্জের দুটি হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন। এ সব কারণে আক্রান্ত ব্যক্তি যে বাড়িতে থাকতেন সেই বাড়িসহ মডেল টাউন এলাকা পুরোটা লকডাউন করা হয়েছে। অন্তত ১৪ দিন তাদের লকডাউনে থাকতে হবে। চিকিৎসা নেয়া দুটি হাসপাতালও লকডাউন করা হয়েছে।

তিনি আরও জানান, মডেল টাউন এলাকায় লকডাউনের পাশাপাশি ওই এলাকায় উপজে’লা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পক্ষ থেকে একটি চিকিৎসক দল স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করার জন্য নিয়োজিত করা হয়েছে।

কাম’রুল হাসান সোহেল জানান, মডেল টাউন এলাকায় ১৮০টি বাড়িতে অন্তত ৪ হাজার পরিবারের বসবাস। এ সব পরিবারের খাদ্য সহায়তার বিষয়টিও উপজে’লা প্রশাসন নিশ্চিত করবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here