করোনা মহামারি কতদিন চলবে, জানালেন মার্কিন গবেষকরা

0
5
www.rongpencil.xyz

বিশ্বজুড়ে মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাস আরও অন্তত দেড় থেকে দুই বছর সক্রিয় থাকতে পারে বলে ধারণা করছেন যুক্তরাষ্ট্রের গবেষকরা। তারা বলছেন, বিশ্বের মোট জনসংখ্যার দুই তৃতীয়াংশে সংক্রমিত হয়ে মানুষের মধ্যে ‘হার্ড ইমিউনিটি’ অর্জনের পরেই ভাইরাসটি অকার্যকর হতে শুরু করবে।

আগের মহামারিগুলো নিয়ে হওয়া গবেষণার ওপর ভিত্তি করে যুক্তরাষ্ট্রের সেন্টার ফর ইনফেকশাস ডিজিজ অ্যান্ড রিসার্চ পলিসি (সিআইডিআরআইপি) গত বৃহস্পতিবার এ রিপোর্ট প্রকাশ করে।

প্রতিবেদনে যে তিনটি সম্ভাব্য পরিস্থিতির কথা বলা হয়েছে, তার কোনোটিতেই করোনাভাইরাস স্বল্প সময়ের মধ্যে মুছে যেতে পারে এমন আশাবাদ মেলেনি বলে মার্কিন সংবাদমাধ্যম ব্লুমবার্গের এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে।

সিআইডিআরআইপি’র প্রতিবেদনে দেওয়া তিনটি সম্ভাব্য চিত্রের প্রথমটিতে সংক্রমণের ধারাবাহিক উত্থান-পতনের ভেতর দিয়ে ২০২১ সালের মধ্যে করোনাভাইরাস ধীরে ধীরে নিষ্ক্রিয় হয়ে পড়বে বলে অনুমান করা হয়েছে। এই উত্থান-পতন অঞ্চলভেদে ভিন্ন হতে পারে। এটি নির্ভর করবে সংক্রমণ মোকাবিলায় নেওয়া বিধিনিষেধের ধরন ও তা কীভাবে তুলে নেওয়া হচ্ছে তার ওপর। এ পরিস্থিতির ফলে আগামী এক থেকে দুই বছর নির্দিষ্ট সময় পরপর বিধিনিষেধ আরোপ ও তা শিথিল করা লাগতে পারে বলেও মনে করা হচ্ছে।

সম্ভাব্য দ্বিতীয় চিত্রটিকে সবচেয়ে ভয়াবহ বলছে সিআইডিআরআইপি। এক্ষেত্রে শীতকালে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ এখনকার চেয়ে অনেক অনেক বেশি হতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। আর তেমনটা হলে এবারের মহামারিও শতবর্ষ আগের স্প্যানিশ ফ্লু’র কারণে হওয়া পরিস্থিতিরই পুনরাবর্তন ঘটাতে পারে বলে মনে করছেন গবেষকরা। তখন লকডাউনের কঠোর বিধিনিষেধ ও সংক্রমণের হারের সঙ্গে লড়াইয়ের ওপরই আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা কম হবে নাকি বেশি হবে তা নির্ভর করবে।

সিআইডিআরআইপি’র প্রতিবেদনের সবচেয়ে ইতিবাচক চিত্রেও করোনাভাইরাস ২০২২ সাল পর্যন্ত বিচরণ করবে ও মহামারি ধীরে ধীরে নিঃশেষ হতে পারে বলে সতর্ক করা হয়েছে। এতে বলা হচ্ছে, যে পরিস্থিতিই হোক না কেন, বিধিনিষেধের মাত্রা অন্তত এখনকার মতো হলেও মহামারি থাকছেই। আমাদের আরও অন্তত ১৮ থেকে ২৪ মাসের জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে।

চলতি বছরের মধ্যে এ ভাইরাসের টিকা আবিষ্কার কিংবা মানুষের হার্ড ইমিউনিটি অর্জিত হচ্ছে না বলে জানিয়ে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সরকারপ্রধানদের এমন বাজে পরিস্থিতি বা সম্ভাব্য দ্বিতীয় চিত্রের জন্য প্রস্তুতি নিতেও প্রতিবেদনে অনুরোধ করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here